| | | | | |

Sampratik

Sampratik

মঞ্চ নাটকঃ ‘দেশে দেশে’

নাটককারঃ নেপাল ঘোষ

মঞ্চঃ কৌশিক সান্যাল

সুরারোপঃ বীরেশ্বর সরকার

আলোঃ বাসুদেব এবং বাবলু ভট্টচার্য

পরিচালনাঃ শক্তিপদ বন্দোপাধ্যায়

প্রথম অভিনয় ১২ সেপ্টেম্বর ১৯৬৬

 

ভিয়েতনাম মুক্তিযুদ্ধের কাহিনী অবলম্বনে অন্যতম বহুল অভিনীত প্রযোজনা। নগুয়েন ভান ত্রয়ীর জীবন কাহিনীর ভিত্তিতে প্রযোজনাটি রচিত।

চব্বিশ বছরের ইলেকট্রিক মিস্তিরি নগুয়েন ভান ত্রয়ী ম্যাকনামারা হত্যা চেষ্টার অপরাধে ১৯৬৪ সালের মে মাসে ধরা পড়েন । জেলে বন্দী অবস্থায় জেরা করার নামে নগুয়েনের ভানের ওপর অকথ্য নির্যাতন চালায় মার্কিন গোয়েন্দা জনসন। নগুয়েনের স্ত্রী ও বন্ধু লোই- কে নগুয়েনের সামনেই বীভৎস অত্যাচার করা হয় নগুয়েন-র মুখ খোলার জন্য। কিন্তু নগুয়েন কোন কথা বলতে রাজি হন নি। নগুয়েনকে ভান ত্রয়ীকে ফায়ারিং স্কোয়াডের সামনে দাঁড় করিয়ে হত্যা করা হয়।

Proscenium Drama: ‘In Countries’

Dramaturge: Nepal Ghosh (Penname of Amal Mukhopadhyay)

Stage Craft: Koushik Sanyal

Music: Bireswar Sarkar

Light:  Basudeb and Bablu Bhattacharya

1st Show: 12th September, 1966 at Minerva

This stage production is one of renowned proscenium dramas on Vietnam War. The source of this play stands from a book ‘The Way He Lived”, the life of legendary Vietcong revolutionary leader Nguyen Van Troy as written by his spouse Phan Thi Quyen.

An electric mechanic Van Troy was captured on alleged charges for assassinating United States Secretary of Defense Robert McNamara. US military officers unleashed brutal torture on Van Troy to have his statement. But he refused. US military even severely tortured his spouse Phan Thi Quyen and his friend Loi in front of Van Troy. But Van Troy refused to provide any information. Loi was shot right in front of Van Troy. He did not budge. Nguyen Van Troy ultimately faced the firing squad.  

    


মঞ্চ নাটকঃ ‘সাঁওতাল বিদ্রোহ’

নাটককার ও নির্দেশনাঃ অজিতেশ বন্দ্যোপাধ্যায়

প্রথম অভিনয়ঃ বিশ শতকের পঞ্চাশের দশকের মাঝামাঝি।

অজিতেশ বন্দ্যোপাধ্যায় গীর্জার পাদ্রীর ভূমিকায় অভিনয় করতেন।

পুনঃপ্রযোজনাঃ ১৯৬৮

নির্দেশনাঃ শঙ্কর ঘোষ

সুখিয়া ও মঙরু সাঁওতাল দম্পতি। সুখিয়ার শরীরে নতুন অতিথির নড়াচড়া। সিধু ও কানুর নেতৃত্বে ইংরেজদের বিরুদ্ধে সাঁওতালদের স্বাধীনতা আন্দোলন শুরু হয়। হয়েছে। মঙরু লড়াইয়ে যোগ দেয়। ইংরেজ শাসকদের হাতে সিধু ধরা পড়ে এবং বিনাবিচারে তাকে হত্যা করে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। ইংরেজ শাসকদের অত্যাচারের সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে সুদখোর, মহাজন ও সাহুকারদের শোষনের মাত্রা। কানুর নেতৃত্বে ইংরেজদের বিরুদ্ধে সাঁওতালদের এই আন্দোলন বিভিন্ন সাঁওতাল পরগনায় ছড়িয়ে পড়ে। কানুও ইংরেজদের হাতে ধরা পড়ে ও তাঁরও ফাঁসি হয়। সুদখোর মহাজনদের পরামর্শে ইংরেজ সাহেব সুখিয়ার ওপর  অকথ্য অত্যাচার করে ও সুখিয়া গর্ভবতী অবস্থাতেই মারা যায়। মঙরু ঘরে ফিরে সুখিয়াকে মৃত অবস্থায় দেখতে পেয়ে কান্নায় ভেংগে পড়ে এবং প্রতিশোধ স্পৃহায় দুচোখে আগুন জ্বলে ওঠে এবং লড়াই জারি রাখার শপথ নেয়।

Proscenium Drama: ‘Santhal Rebellion’

Dramaturge and Direction: Ajitesh Bandopadhyay

First production: Mid ‘50s of twentieth century

Ajitesh Bandopadhyay acted in a character of priest of a Church.

Subsequent Production: 1968

Direction: Shankar Ghosh

Sukhia and Mangru were Santhal family. Sukhia was expecting a baby. Rebellion against the British East India Company was started under the leadership of Sidhu and Kanhu. Mangru participated in the rebellion. The Company military forces captured Sidhu and without any trial hanged him on the tree. Land lords and money-lenders escalated their oppression along with the atrocities of the Company. This rebellion of Santhals spearheaded throughout Santhal Parganas.

Eventually Kanhu was also captured and was hanged to death. At the instigation of landlords and money-lenders The Company officers brutally tortured Sukhia who died in pregnancy. Mangru returned back to his village and found Sukhia dead. Mangru burst out in tears though his eyes flashed for revenge. Mangru pledged to continue the fight.    

 


যাত্রা পালাঃ ‘পাশাখেলা’

পালাকারঃ শুভঙ্কর চক্রবর্তী

সুরারোপঃ শঙ্কর ঘোষ এবং দিলীপ মুখোপাধ্যায়

নির্দেশনাঃ শঙ্কর ঘোষ

প্রথম অভিনয়ঃ ২৬ জানুয়ারি ১৯৭৪, শান্তিপুর পাবলিক লাইব্রেরী

পালাটি ১৯৭২ সালে বিধানসভা নির্বাচনের পটভূমিকায় মহাভারতের পাশাখেলার রুপকের আদলে রচিত।

Open air Opera: ‘The dice-play’

Dramaturge: Subhankar Chakraborty

Music: Shankar Ghosh and Dilip Mukhopadhyay

Direction: Shankar Ghosh

First Production: 26th January 1974 at Shantipur Public Library

In the backdrop of Assembly Election of 1972, this open air opera symbolically present the dice-play in the great epic Mahabharat.

 


যাত্রা পালাঃ বিদ্রোহী বীর তিতুমীর

পালাকারঃ চিত্ত দে

সুরারোপঃ শুভেন্দু মাইতি

আলোঃ তারাপদ মান্না

নির্দেশকঃ শঙ্কর ঘোষ

শতাধিক রজনী গ্রাম বাংলার বিশাল দর্শকদের সামনে এই পালার অভিনয় হয়েছে।

 

Open air Opera: ‘Rebellious Hero Titumir’

Dramaturge: Chitta Dey

Music: Suvendu Maity

Light: Tarapda Manna

Direction: Shankar Ghosh

This play was staged before huge audience of common people in villages over hundreds nights.

Mir Nisar Ali ails Titumir of Chandpur village of Baduria under Barasat sub –division organized a revolt with the assistance of peasants, weavers and poor people against the landlords indigo-planters as also against the British rule. This ‘do or die’ revolt for independence is marked as historical in nature and character. Titumir is famed for having built a large bamboo fort in Narkelberia from to resist the British in 1831, which passed onto Bengali folk legend. Titumir was bayoneted to death during the struggle. This battle is also known as Wahabi Movement.   

The open air opera is based on this historical character and the struggle.  

 


মঞ্চ নাটকঃ ‘পৃথিবী ঘুরছেই’

নাটককারঃ শান্তনু বসু

মঞ্চ ও আলোঃ নির্মল গুহ রায়

আবহঃ শ্রীপতি দাস

নির্দেশনাঃ শঙ্কর ঘোষ

প্রথম প্রযোজনাঃ ১৯৮২

জর্জি ডিমিট্রভের জন্মশতবর্ষে নাটকটি রচিত। হিটলার জার্মানীতে ক্ষমতায় এসে কমিউনিস্ট এবং ইহুদি নিধনে তৎপর হ’ন।  এক গভীর ষড়যন্ত্রে জার্মান রাইখস্টাগে আগুন লাগানো হয় এবং কমিউনিস্ট পার্টির উপর যাবতীয় দায় চাপানো হয়। জর্জি ডিমিট্রভ এবং অন্যান্য নেতৃবৃন্দ গ্রেপ্তার হ’ন। রাইখস্টাগ সম্পূর্ণ ভস্মীভুত হয়। এই চক্রান্তের ফলে দেশে জরুরী অবস্থা জারি করা হয়। কমিউনিস্ট পার্টিকে বেআইনী ঘোষণা করা হয়।

জর্জি দিমিত্রভ আদালতে নিজেই নিজের হয়ে সওয়াল করেন। যে সওয়াল রাইখস্টাগ ট্রায়াল নামে ইতিহাস বিখ্যাত হয়ে আছে ।

প্রতিপক্ষের প্রতিটা প্রশ্নের জবাব অকাট্য যুক্তিতে সব মিথ্যে প্রমান করেন এবং ঘোষণা করেন ''এপ্পুরসে মুভে" পৃথিবী ঘুরছেই সমাজতন্ত্রের দিকে। বিচারক উপযুক্ত প্রমাণের অভাবে দিমিত্রভকে মুক্তি দিতে বাধ্য হন।

Proscenium Drama: ‘Yet the World moves’

Stage and Light: Nirmal Guha Roy

Music: Sripati Das

Direction: Shankar Ghosh

First Production: 1982

The drama is written to commemorating the birth centenary of Georgi Dimitrov. 

On assuming power in Germany Hitlar and his associates was planning the communists and Jews. As a dangerous conspiracy ‘Reichstag’ was set on fire and heinous propaganda unleashed that the communists set the ‘Reichstag’ on fire. Dimitrov and other leaders were arrested. ‘Reichstag’ was burnt into ashes. State of emergency was declared. Communist party was declared illegal.

In famous ‘The Reichstag Fire Trial’ Georgi Dimitrov pleaded himself on the charges labeled against him. Dimitriov used the term ‘E pur si muove ‘or "And yet it moves”, the

Phrase attributed to Galileo Galilei and declared that the world will move towards socialism.  The Court finding no other way but to declare Dimitrov not guilty.     

 


মঞ্চ নাটকঃ ‘এখন অর্ক’

নাটককার: সুদীপ সরকার

মঞ্চ : জয়ন্ত দাস

আলো: প্রশান্ত মুখার্জী

আবহ: কঙ্কণ ভট্টাচার্য

মেক-আপ : জয়ন্ত দাস

পরিচালনা: জয়ন্ত দাস ও রনজিত ব্যানার্জী

অভিনয়: তপন রায়,  প্রিয়াঙ্গী চক্রবর্তী, আশিস চট্টোপাধ্যায়, রনজিত ব্যানার্জী, জয়দীপ নন্দী, রাজর্ষি  চক্রবর্তী, রাজা ভট্টাচার্য, রিমা রায়, সুব্রত পাল, অভিজীত ঘোষ ও জয়ন্ত দাস।

প্রথম প্রযোজনাঃ ১০ নভেম্বর ২০১৯, অজিতেশ মঞ্চ

নার্ভাস সাইকোসিসে আক্রান্ত এক যুবকের আত্ম-সংগ্রাম। শাসক-র  মাস্তানবাহিনী অর্ককে প্রকাশ্য দিবালোকে রাস্তায় ফেলে পিটিয়ে থেঁতলে দেয়। দীর্ঘ চিকিৎসার পরেও প্রতিবাদি অর্ক মানসিক আঘাত কাটাতে পারছে না। সে তার সেই দিনের ভয়ঙ্কর স্মৃতির কাছেও ফিরে যেতে চায়না বা পারেনা। সবাই চায় অর্ক ফিরে আসুক তার স্বাভাবিক জীবন সংগ্রামে। ক্রাচের অবলম্বন ছুঁড়ে ফেলে অর্ক দাঁড়াক নিজের পায়ে।

Proscenium Drama: ‘Arka Now’

Dramaturge: Sudeep Sarkar

Stage Craft: Jayanta Das

Light Design: Prasanta Mukherjee

Music: Kankan Bhattacharya

Make-up: Jayanta Das

Direction: Jayanta Das and Ranajit Banerjee 

Cast: Tapan Roy, Priyangi Chakraborty, Asis Chattopadhyay, Ranajit Banerjee, Jaideep Nandi, Rajarshi Chakraborty, Raja Bhattacharyay, Rima Roy, Subrata Pal, Avijit Ghosh and Jayanta Das.

First Production: 10th November 2019, Ajitesh Mancha

Self struggle of a youth suffering from fear psychosis. Hooligans supported by the ruling party assaulted Arka in broad day light. After prolonged medical treatment Arka could not overcome the mental shock. Arka could not recollect that heinous incident rather he doesn’t want to. But all others want that Arka should come back to his protagonist life. Arka should stand on his own feet without any help of crutch

Comments

XVYITVQNOK105202273619